বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে যুক্তরাষ্ট্রের বহু অঙ্গরাজ্যে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। তবে এই লকডাউনের মধ্যেই কয়েকটি অঙ্গরাজ্যের মানুষ রাস্তায় নেমে লকডাউনবিরোধী বিক্ষোভ করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান ওহাইও কেনটাকি মিনেসোটা, নর্থ ক্যারোলাইনা ও ইউটাহসহ বেশ কয়েকটি অঙ্গরাজ্যে সরকারের ‘স্টে হোম’ আদেশের বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমেছে সাধারণ মানুষ। তাঁদের দাবি কাজে ফিরতে চাই।

করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে এসব অঙ্গরাজ্যে জনগণকে ঘরে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

তবে এই বিক্ষোভের আগুনে এবার ঘি ঢাললেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেসব অঙ্গরাজ্যের মানুষদের শান্ত থাকার বদলে তিনি বিক্ষোভকে আরো উস্কে দিয়েছেন। আর এ জন্য বিশ্লেষকরা বলছেন, ট্রাম্প আগুন নিয়ে খেলছেন।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনসহ একাধিক আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম তাঁদের প্রতিবেদনে জানিয়েছে, করোনার প্রাদুর্ভাবে অর্থনৈতিক সংকটের আশঙ্কায় লকডাউনের বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমে আসা বিক্ষোভকারীদের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

সংবাদমাধ্যমগুলো ট্রাম্পের অফিসিয়াল টুইটার পেজ থেকে নেওয়া একাধিক টুইটের বরাত দিয়ে এসব সংবাদ উপস্থাপন করেছে। চলমান বিক্ষোভের সময় ট্রাম্প সিরিজ টুইটে লেখেন, ‘মিনেসোটাকে অবমুক্ত করো’, ‘মিশিগানকে অবমুক্ত করো ও ‘ভার্জিনিয়াকে অবমুক্ত করো।

টুইট বার্তায় ওই বিক্ষোভের প্রতি সমর্থন জানিয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, কিছু কিছু রাজ্যে লকডাউনের পদক্ষেপ খুব কড়াকড়ি হয়েছে। এছাড়া শুক্রবারের ব্রিফিংয়েও ট্রাম্প বলেন, মিনেসোটা, মিশিগান ও ভার্জিনিয়া যেসব পদক্ষেপ নিয়েছে, সেগুলোর মধ্যে খুব কঠোর’ হয়েছে।

সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, ট্রাম্প টুইটে যে তিনটি রাজ্যের কথা উল্লেখ করেছেন, সেগুলোর ক্ষমতায় আছেন ডেমোক্র্যাটিক দলের গভর্নর। বিবিসি বলছে, ডেমোক্র্যাটদের বিরুদ্ধে এই বিক্ষোভের মধ্য দিয়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প রাজনৈতিক ফায়দা পাওয়ার চেষ্টা করছেন।

শনিবার সন্ধ্যায় চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লু কাং বলেন এক চীন নীতি অপরিবর্তনীয়। একমাত্র চীনের সরকারই এর প্রতিনিধিত্বকারী। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছেও এটা স্বীকৃত এবং কেউ এটা পরিবর্তন করতে পারবে না।

বুধবার মিশিগানের রাজধানীতে গাড়িতে বসে বিক্ষোভ করেন লোকজন। আয়োজকরা এই বিক্ষোভের নাম দিয়েছেন অপারেশন গ্রিডলক। বিক্ষোভে কয়েক মাইল দীর্ঘ ছিল গাড়ির সারি।

Write A Comment

twenty − 1 =

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close